লকডাউনে অবসাদ কাটাতে মনোবিদ সন্দীপ্তার ৮ পরামর্শ

করোনাভাইরাসের কারণে সারা বিশ্বই আজ স্তব্ধ। দেশে দেশে চলছে লকডাউন, ঘরে বন্দি মানুষ। তবুও প্রতিদিনই বাড়ছে মৃত্যুর মিছিল। আক্রান্ত বাড়ছে প্রতি মিনিটে। এরই মধ্যে বিশ্বজুড়ে মারণ এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে প্রায় সাড়ে ১৫ লাখ মানুষ। মৃত্যুবরণ করেছে ৮৮ হাজারের বেশি মানুষ। লকডাউনে কোলাহল, ব্যস্ততা থেকে দূরে থাকা আপনাকে চারপাশের পরিস্থিতি ভীত করে তুলছে প্রতিনিয়ত।

এ এক অদ্ভুত অনিশ্চয়তা। মৃত্যুর হাত থেকে বেঁচে থাকার অক্ষম প্রচেষ্ঠা। বাইরে বেরুলে করোনার সংক্রমণ, বাড়িতে থাকলে অনিশ্চিত ভবিষ্যৎ। ভিতরে জমতে থাকা দুশ্চিন্তা, অবসাদ আপনার আত্মবিশ্বাসও ভেঙেচুরে দিতে চাইছে। এমন দমবন্ধ পরিস্থিতিতে কিভাবে নিজেকে মানসিকভাবে সুস্থ রাখবেন সেই উপায় বাতলে দিয়েছেন ভারতের বিশিষ্ট সাইকোলজিস্ট, অভিনেত্রী সন্দীপ্তা সেন।

সন্দীপ্তা বললেন, ‘প্ল্যান করে আসলে কিছুই হয় না। সবাই প্রায় বাড়িতে। কী অপেক্ষা করছে কেউ জানি না। এ অবস্থায় সবচেয়ে আগে দরকার নিজের প্রতিদিনকার লাইফস্টাইলটাকে স্বাভাবিক রাখা। আমাদের মস্তিষ্ক হঠাৎ করে এই বিশাল চেঞ্জটা নিতে পারে না। সেখান থেকে মনের উপরেও তার প্রভাব পড়ে। যার ফল অবসাদ, দুশ্চিন্তা। অফিস যাওয়ার তাড়া নেই, ঘুম থেকে দেরি করে উঠলাম। একেবারেই করবেন না। যেমন উঠতেন আগে, সে রকম রুটিন মেনে চলুন।’

ওঠার পর, তার পর কী? প্রশ্নটা প্রায় লুফে নিয়েই তার জবাব,’দেখুন কী হবে তো আমরা কেউ জানি না। যাই হোক, একসঙ্গে লড়াইটা লড়তে হবে। কিন্তু এখন এই দুশ্চিন্তা যদি একবার অবসাদে পরিণত হয়ে যায়,তা হলে কিন্তু সেখান থেকে বেরুনো মুশকিল।’

অবসাদ কাটাতে সন্দীপ্তা যে উপায়গুলির কথা বললেন

১) ডিসিপ্লিনটা ভাঙতে দেওয়া চলবে না। যেমন সময়ে উঠতেন তেমন সময়েই উঠুন।

২) ঘরের অনেক কাজ থাকে। সেখানে নিজেকে যুক্ত করুন।

৩) সারাক্ষণ ফেসবুক, হোয়াটসঅ্যাপ নয়। সেখানকার ফেক নিউজ আরো চিন্তা বাড়াবে।

৪) পুরনো শখ ঝালিয়ে নেওয়ার সময় এখন। আঁকতে ভালবাসতেন? তাই করুন। বিয়ের পর নাচ ছেড়ে দিয়েছেন। এই তো সময়। আবার ঝালিয়ে নিন।

৫) আপনার এই কদিনেই দম বন্ধ হয়ে আসছে? বাড়ির সবচেয়ে বয়স্ক মানুষটার কথা ভাবুন। লকডাউন হোক বা না হোক, তাকে কিন্তু একাই থাকতে হয়। এই সময় তাকে সময় দিন।

৬) লুডু, দাবার মতো ইনডোর গেম খেলতে পারেন।

৭) খুব প্যানিকড হয়ে পড়লে ইউটিউবে রিলাক্সেশন ভিডিও দেখে নিতে পারেন। ভাল লাগবে।

৮) মেডিটেশনও করতে পারেন।

বাস্তব বুঝে নিজেও তাই করছেন সন্দীপ্তা। ঘর গোছাচ্ছেন,গাছে পানি দিচ্ছেন, বাবা মায়ের সঙ্গে বসে লুডো খেলছেন নিয়ম করে। কী হবে তা নিয়ে আগে থেকে সাত পাঁচ ভাবতে তিনি চান না। অর্থকষ্ট, চাকরি যাওয়ার মতো গুরুতর সমস্যা যে আসতে চলেছে তা মাথায় রেখেই আগানোর বার্তা তার। সব ঝড় থেমে যাবে এক দিন।

সূত্র- আনন্দবাজার।

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Most searched keywords: Insurance, Loans, Mortgage, Attorney, Credit, Lawyer, Donate, Degree, Hosting, Claim, Conference Call, Trading, Software, Recovery, Transfer, Gas/Electricity, Classes, Rehab, Treatment, Cord Blood, domain, music, mobile, phone, buy, sell, classifieds,recipes
Top