ত্রাণ বিতরণের দায়িত্ব সেনাবাহিনীকে দিতে সরকারকে আইনি নোটিশ

সেনাবাহিনীর মাধ্যমে সারা দেশে ত্রাণ কাজ পরিচালনার দাবিতে সরকারকে আইনি নোটিশ পাঠিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার শিহাব উদ্দিন খান। পরিকল্পনা, স্থানীয় সরকার ও পল্লী উন্নয়ন, স্বাস্থ্য ও পরিবার, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও খাদ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব এবং বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর মহাপরিচালকে ই-মেইলের মাধ্যমে আজ শনিবার এ নোটিশ পাঠানো হয়েছে।

নোটিশ পাওয়ার এক সপ্তাহের মধ্যে সারা দেশে অর্থনৈতিকভাবে ঝুঁকিপূর্ণ জনগোষ্ঠীর তালিকা তৈরি করে তাদের মধ্যে খাদ্য এবয় ওষুধ সামগ্রী সরবরাহ কার্যক্রম সেনাবাহিনীর মাধ্যমে পরিচালনা করতে বলা হয়েছে।

আইনি নোটিশে বলা হয়েছে, করোনাভাইরাসের সামাজিক সংক্রমণের পরিপ্রেক্ষিতে এই মূহুর্তে অর্থনৈতিকভাবে ঝুঁকিপূর্ণ জনগোষ্ঠী সবচেয়ে বেশি আতঙ্ক এবং অনিশ্চয়তার মধ্যে রয়েছে। সল্প আয়ের মানুষ, দিন মজুর, রিকশা চালক থেকে শুরু করে নানা পেশার মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়েছে। অনেক মধ্যবিত্ত পরিবার লজ্জায় মুখ ফুটে সাহায্য চাইতে পারছে না। এ সমস্থ পরিবারে নিত্য প্রয়োজনীয় খাদ্য এবং ঔষধের অভাব কিংবা ঘাটতি দেখা দিয়েছে। এই অবস্থায় সরকারের দায়িত্ব অর্থনৈতিকভাবে ঝুঁকিপূর্ণ এসব জনগোষ্ঠীর তালিকা তৈরি করে তাদের কাছে খাদ্য ও ঔষধ সামগ্রী পৌঁছে দেওয়া। যথাযথভাবে এই খাদ্যের সরবরাহ এবং বিতরণ নিশ্চিত করতে না পারলে ভয়াবহ সমস্যা দেখা দিতে পারে। যদিও সরকারের পক্ষ থেকে দাবি করা হচ্ছে দেশে খাদ্য সঙ্কট নেই। তথাপি করোনা মোকাবেলায় সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে হলে এই ঝুঁকিপূর্ণ জনগোষ্ঠীর অন্তত খাদ্য এবং নিত্য প্রয়োজনীয় ওষুধের নিশ্চয়তা সরকারকে দিতে হবে।

নোটিশে সেনাবাহিনীকে এ কার্যক্রম পরিচালনার দায়িত্ব দেওয়ার দাবি জানিয়ে বলা হয়েছে, অতীতে নানা দুর্যোগে সেনাবাহিনী সাফল্যের সঙ্গে সরকারকে সহায়তা করেছে এবং জনসাধারণের আস্থা অর্জন করেছে। ইতিমধ্যে ত্রাণ কাজে বিভিন্ন অনিয়ম, নির্বাচিত প্রতিনিধি কর্তৃক চাল চুরি ও মজুদ এবং সমন্নয়হীনতা লক্ষ্য করা গেছে। এই পর্যায়ে একমাত্র সেনাবাহিনীর মাধ্যমে এই ত্রাণ বিতরণ এবং সরবরাহের কাজ যথাযথভাবে পরিচালনা সম্ভব।

কমেন্টসমুহ
Secret Diary Secret Diary

Top